Saturday, August 1
Shadow

পবিত্র কুরআন সম্পর্কিত আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তরঃ

‘আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক’। লেখাটি শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথেঃ

প্রশ্নোত্তরে ইসলামী জ্ঞান:  (১৫১-১৯০)

বিষয়: কুরআনঃ

151. প্রশ্নঃ মাক্কী সূরার মৌলিক বৈশিষ্ট কি কি?

উত্তরঃ ১) তাওহীদ এবং আল্লাহর ইবাদতের প্রতি আহবান। জান্নাত-জাহান্নামের আলোচনা এবং মুশরিকদের সাথে বিতর্ক।

২) মুশরকিদের খুন-খারাবী, ইয়াতীমের সম্পদ ভক্ষণ প্রভৃতি কর্মের নিন্দাবাদ।

৩) সংক্ষিপ্ত বাক্য অথচ অতি উচ্চাঙ্গের সাহিত্য সমৃদ্ধ।

৪) নবী মুহাম্মাদ (সাঃ)কে সান্তনা দেয়া ও উপদেশ গ্রহণ করার জন্য ব্যাপকভাবে নবী-রাসূলদের কাহিনীর অবতারনা, এবং কিভাবে তাঁদের সমপ্রদায়ের লোকেরা তাঁদেরকে মিথ্যাবাদী বলেছে ও কষ্ট দিয়েছে তার বর্ণনা।

152. প্রশ্নঃ মাদানী সূরার মৌলিক বৈশিষ্ট কি কি?

উত্তরঃ (১) ইবাদত, আচার-আচরণ, দন্ডবিধি, জিহাদ, শান্তি, যুদ্ধ, পারিবারিক নিয়ম-নীতি, শাসন প্রণালী অন্যান্য বিধি-বিধানের আলোচনা।

(২) আহলে কিতাব তথা ইহুদী খৃষ্টানদেরকে ইসলামের প্রতি আহবান।

(৩) মুনাফেকদের দ্বিমুখী নীতির মুখোশ উম্মোচন এবং ইসলামের জন্য তারা কত ভয়ানক তার আলোচনা।

(৪) সংবিধান প্রণয়ণের ধারা ও তার লক্ষ্য-উদ্দেশ্য নির্ধারণ করার জন্য দীর্ঘ আয়াতের অবতারণা।

153. প্রশ্নঃ মাদানী সূরা পরিচয়ের নিয়ম কি?

উত্তরঃ (১) যে সকল সূরায় কোন কিছু ফরয করা হয়েছে বা দন্ডবিধির আলোচনা করা হয়েছে।

(২) যে সকল সূরায় মুনাফেকদের সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

(৩) যে সকল সূরায় আহলে কিতাবদের সাথে বিতর্ক করা হয়েছে।

(৪) যে সকল সূরা “ইয়া আইয়্যুহাল্লাযীনা আমানূ” দ্বারা আরম্ভ হয়েছে।

154. প্রশ্নঃ মাক্কী সূরার সংখ্যা কতটি?

উত্তরঃ ৮৬টি সূরা।

155. প্রশ্নঃ মাদানী সূরার সংখ্যা কতটি?

উত্তরঃ ২৮টি সূরা।

156. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার প্রতিটি আয়াতে ‘আল্লাহ্‌ শব্দ আছে?

উত্তরঃ সূরা মুজাদালা। (৫৮ নং সূরা)

157. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন কোন সূরা ‘আল হামদুলিল্লাহ দ্বারা শুরু হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা ফাতিহাসূরা আনআম, সূরা কাহাফ, সূরা সাবা ও সূরা ফাতির। (সূরা নং যথাক্রমে, ১,৬,১৮,৩৪ ও ৩৫)

158. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনে ছয়জন ব্যক্তির নাম উল্লেখ আছে যাঁরা সকলেই নবীর পুত্র নবী ছিলেন

উত্তরঃ (১) ইবরাহীমের পুত্র ইসমাঈল

(২) ইবরাহীমের পুত্র ইসহাক,

(৩) ইসহাকের পুত্র ইয়াকূব

(৪) ইয়াকূবের পুত্র ইউসুফ,

(৫) যাকারিয়ার পুত্র ইয়াহইয়া ও

(৬) দাউদের পুত্র সুলাইমান (আলাইহিমুস্‌ সালাম)

159. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনে জাহান্নামের ৬টি নাম উল্লেখ হয়েছে। উহা কি কি?

উত্তরঃ (১) জাহান্নাম (সূরা নাবা: 21)

(২) সাঈর (সূরা নিসা: 10)

(৩) হুতামা (হুমাযা: 4)

(৪) লাযা (সূরা মাআরেজ: 15)

(৫) সাক্বার (সূরা মুদ্দাসসির: 42)

(৬) হাভিয়া (সূরা কারিয়া: 9)

160. প্রশ্নঃ কুরআনের কোন সূরায় মুবাহালার আয়াত রয়েছে?

উত্তরঃ সূরা আলে ইমরান – আয়াত নং- ৬১।

মুবাহালা: হক ও বাতিলের মাঝে দ্বন্দ্ব হলে, বাতিল পন্থীর সামনে যাবতীয় দলীল-প্রমাণ উপস্থাপন করার পরও সে যদি হঠকারিতা করে, তবে তাকে মুবাহালার জন্য আহবান করা হবে। তার নিয়ম হচ্ছেঃ উভয় পক্ষ নিজের স্ত্রী, সন্তান-সন্ততিকে উপস্থিত করবে, অতঃপর প্রত্যেক পক্ষ বলবে, আমরা যদি বাতিল পন্থা উপর প্রতিষ্ঠিত থাকি, তবে মিথ্যাবাদীদের উপর আল্লাহর লা’নত (অভিশাপ)। এটাকেই বলে মুবাহালা।

161. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন্‌ সূরার কোন্‌ আয়াতে ব্যভিচারের দন্ডবিধির আলোচনা আছে?

উত্তরঃ সূরা নূর- আয়াত নং- ২।

162. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কত নং আয়াতে ওযুর ফরয সমূহ উল্লেখ করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা মায়েদা – আয়াত নং- ৬।

163. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে চুরির দন্ডবিধি উল্লেখ হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা মায়েদা – আয়াত নং- ৩৮।

164. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে মিথ্যা অপবাদের শাস্তির বিধান উল্লেখ হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা নূর- আয়াত নং- ৪।

165. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে মুমিন নারীপুরুষকে দৃষ্টি অবনত রেখে চলাফেরা করতে 

বলা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা নূর- আয়াত নং ৩০-৩১।

166. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে মীরাছ (উত্তরাধীকার সম্পদ বন্টনসম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা নিসা- আয়াত নং- ১১, ১২ ও ১৭৬।

167. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে বিবাহ হারাম এমন নারীদের পরিচয় দেয়া হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা নিসা – আয়াত নং- ২৩, ২৪।

168. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে যাকাত বন্টনের খাত সমূহ আলোচনা করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা তওবা– আয়াত নং- ৬০।

169. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে ছিয়াম সম্পর্কিত বিধিবিধান উল্লেখ হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা বাক্বারা – আয়াত নং ১৮৩-১৮৭।

170. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে বাহনে আরোহনের দুআ উল্লেখ করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা যুখরুফ- আয়াত নং- ১৩।

171. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরার কোন আয়াতে নবী (সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামএর প্রতি 

দরূদ পড়ার আদেশ করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা আহযাব- আয়াত নং ৫৬।

172. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে হুনায়ন যুদ্ধের কথা আলোচনা করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা তওবা – আয়াত নং- ২৫, ২৬।

173. প্রশ্নঃ কোন সূরায় বদর যুদ্ধের ঘটনাবলী উল্লেখ করা হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা আনফাল। (আয়াত নং : 5-19, 41-48, 67-69)

174. প্রশ্নঃ কোন সূরায় বনী নযীরের যুদ্ধের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা হাশর। (আয়াত নং ২-১৪)

175. প্রশ্নঃ কোন সূরায় খন্দক যুদ্ধের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা আহযাব (আয়াত নং ৯-২৭)।

176. প্রশ্নঃ কোন সূরায় তাবুক যুদ্ধের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা তওবা (আয়াত নং ৩৮-১২৯)।

177. প্রশ্নঃ কোন সূরায় নবী (সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামহিজরতের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা তওবা (আয়াত নং ৪০)

178. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে হারূতমারূতের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা বাক্বারা- আয়াত নং- ১০২।

179. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে কারূনের কাহিনী উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা ক্বাছাছ আয়াত ৭৬-৮৩।

180. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে সুলায়মান (আঃ)এর সাথে হুদহুদ পাখীর ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা নমল আয়াত নং ২০, ৪৪।

181. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে ক্বিবলা পরিবর্তনের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা বাক্বারা- আয়াত নং ১৪২-১৫০।

182. প্রশ্নঃ কোন সূরায় নবী সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ইসরামেরাজের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা বানী ইসরাঈল (আয়াত নং ১) ও সূরা নজম (আয়াত: ৮-১৮)

183. প্রশ্নঃ কোন সূরায় হস্তি বাহিনীর ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা ফীল।

184. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে যুল ক্বারানাইন বাদশাহর ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা কাহাফ- আয়াত নং- ৮৩-৯৮।

185. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে ত্বালুত  জালুতের ঘটনা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা বাক্বারা- আয়াত নং- ২৪৬-২৫২।

186. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে মসজিদে আক্বসার কথা উল্লেখ আছে?

উত্তরঃ সূরা বানী ইসরাঈল – আয়াত নং-১

187. প্রশ্নঃ কোন সূরার কোন আয়াতে পিতামাতার ঘরে প্রবেশের জন্য অনুমতি নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে?

উত্তরঃ সূরা নূর – আয়াত নং- ৫৮, ৫৯

188. প্রশ্নঃ সর্বপ্রথম কোন সাহাবী মক্কায় উচ্চ:স্বরে কুরআন পাঠ করেন?

উত্তরঃ আবদুল্লাহ্‌ বিন মাসউদ (রাঃ)।

189. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের কোন সূরাটি ওমর (রাঃ)এর ইসলাম গ্রহণের কারণ ছিল?

উত্তরঃ সূরা ত্বাহা।

190. প্রশ্নঃ পবিত্র কুরআনের মধ্যে কোন পরিবর্তন পরিবর্ধন হবে না। 

আল্লাহ নিজেই তার হেফাযতের দায়িত্ব নিয়েছেন। কথাটি কোন সূরার কত নং আয়াতে আছে?

উত্তরঃ সূরা হিজ্‌র ৯ নং আয়াত।

 

 

Series Navigation<< পবিত্র কুরআন সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তরঃহাদিস সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন ও উত্তরঃ >>

‘আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক’। লেখাটি শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথেঃ

1 Comment

  • Monjurul Islam

    আসসালামুআলাইকুম। আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন। আমি মঞ্জুরুল ইসলাম, ইমাম আবু হানিফার হানাফি মাযহাবের অনুসারি। ছোট বেলা থেকেই আল্লাহর রহমতে ৫ওয়াক্ক নামাজ এবং সাধারণ মমিন হিসাবে যে সকল কিছু আমল তা করে আসতেছি। আমার বাড়ী জামালপুর জেলা সরিষাবাড়ী থানা ভাটারা ইউনিয়নে অবস্থিত। আমি একজন বিবিএ ৪র্থ বর্ষের ছাত্র। লেখাপড়ার পাশাপাশি আমি একটি কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার এবং ছোটখাটো একটা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসতেছি।কথা সেটা না কথা হলো আমার প্রতিষ্ঠানের পাশে এক গাইরে মাকাল্লিদের দোকান ছিল সে আমাকে বার বার এই সহি হাদিসের নামে আমাকে ওসওয়াসা দিত এক পর্যায়ে প্রায় আমি ভিভ্রান্তই হয়ে যাই। আমাদের সমাজের যে সকল ইমাম গন আছেন তারা সাধারণ কিছু হুজুর মাত্র তারাও তাদের প্রশ্নগুলোর সঠিক উত্তর বা ব্যখ্যা দিতে পারে নাতো না আমার মত সাধারণ ছেলে তো আরও বিপাকে পড়ে যায় তবে একদিন লুৎফর রহমান ফরাইজী হুজুরের সরিষাবাড়ী স্টেশনের পাশ্র্বে একটি মাহফিল হয় সেই মাহফিলে আপনার মূল্যবান বয়ানে আমার ভিতরের জড়তা অনেক দূর হয়ে যায় এবং মেলান্দহ জামিয়া হুসাইনিয়া এর হুজুর আমানুল্লাহ কাসেমী সাহেবের মূল্যবান কথাগুলো শুনে আল্লাহর রহমতে অনেক ফয়দা আসে। তার কিছু দিন পর আপনি আবার আসেন বাউসী পঞ্চপীর এক বাহাসের জন্য যেখানে আমিও ছিলাম শ্রোতা হিসাবে সেখান থেকে বাতিল ফেরকা পালায়ন করা এবং আপনার মূল্যবান বয়ান আমাকে আবার আমাকে এক নতুন আলোর সন্দান দেয়। সেই বাহাসের দিন হুজুর আপনার একটি বিষয় সবচেয়ে বেশি মনে জায়গা করে নিয়েছে আপনার শিষ্টাচার যখন জামালপুরের হুজুর আসলো সাথে সাথে আপনি আপনার বক্তব্য বন্ধ করে আসন ছেড়ে দিয়ে মাটিতে বসে যাচ্ছিলেন সত্যি কথা হুজুর এই দৃষ্য আমি আজও ভুলতে পারি না। আপনার এই আদবই আমাকে বুঝিয়ে দিয়েছে আমরা ইংশাআল্লাহ হকের পথের উপর আছি। যাই হোক তার কয়েকদিন পর আমি ইউটিউবে আপনাদের দ্বারা পরিচালিত আহলেহক মিডিয়ার সন্ধান পাই যেহেতু আমি একটি ছোটখাটো কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার পরিচালনা করি সেহেতু ইন্টারনেট ব্যবহার করতেই হয়। সেই সুবাদে আপনার মুটামুটি সকল ভিডিও একের পর এক ডাউনলোড করা শুরু করি এবং মনোযোগ দিয়ে শুনা করি এবং আমার গুলোর উপর আরও দরদ আসতে শুরু করে। আমার মনে হয় আপনাদের সকল ফেরকাগুলোর সমস্যা দিয়েছেন এবং দিয়ে যাবেন কিন্তু ওদের আর একটি বড় ধোকা হলো কুরআনের আয়াত সংখ্যা ৬৬৬৬ টি নাকি ৬২৩৬টি। হুজুরদের সমীপে আকুল আবেদন কুরআনের আয়াত সংখ্যা নিয়ে একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করুন । তবে খুব কৃতজ্ঞ থাকবো। হুজুর আপনার সাথে সাথে তালিমুল মওলা ভাই, আবু রায়য়ান ভাই এবং এর সাথে সম্পৃক্ত সকলকে আবারো মোবারক বাদ জানাই। আবারও অনুরোধ করছি অতি সত্যর একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করুন এ্ই কুরআনের আয়াত সংখ্যা নিয়ে নইয়ে আমার মত সাধারণ মুসলমান খুব বিভ্রান্তির মধ্যে পরে আছে বা পড়ে যাচ্ছে। মোবাইল : 01733124189. হুজুর অনুগ্রহ করে যদি আপনার নাম্বার টি আমায় দিতেন তবে আমাদের সমাজে কিছু ফেতনা সৃষ্টিকারি দলের নতুন নতুন ফেরকাগুলো আপনাকে সরাসরি জানাইতে পারতাম এবং মাঝে মধ্যে আপনাদের খোজ খবর নিতে পারতাম। দোয়া করি আল্লাহতায়ালা আপনাদের নেক হায়াত দান করুক আমিন। আসসালামুআলাইকুম।

Leave a Reply